Home News আইএসএস থেকে রাশিয়ার সরে আসার ঘোষণা দুঃখজনক : যুক্তরাষ্ট্র

আইএসএস থেকে রাশিয়ার সরে আসার ঘোষণা দুঃখজনক : যুক্তরাষ্ট্র

রাশিয়ার কাছ থেকে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণাপত্র পায়নি নাসা

by Newsroom
নেড প্রাইস

স্পেসটেটর ডেস্ক ।। আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন থেকে রাশিয়ার সরে আসার ঘোষণাকে দুঃখজনক আখ্যা দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। মঙ্গলবার (২৪ জুলাই) যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে অংশীদারিত্ব ভিত্তিতে থাকা আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশন (আইএসএস) থেকে সরে আসার ঘোষণা দেয় রাশিয়া। এ সময়ের মধ্যে (২০২৪) তারা নিজেদের মহাকাশ স্টেশন গড়ে তোলার প্রত্যাশার কথাও জানায়। তবে এভাবে আইএসএস থেকে সরে আসার বিষয়টিকে অপ্রত্যাশিত ঘটনা হিসেবে দেখছে যুক্তরাষ্ট্র।

স্টেট ডিপার্টমেন্টের মুখপাত্র নেড প্রাইস বলেছেন, আইএসএস এ সম্পাদিত বিভিন্ন বৈজ্ঞানিক কাজের জন্য এটি একটি দুর্ভাগ্যজনক উন্নয়ন। আমাদের মহাকাশ সংস্থাগুলো বছরের পর বছর ধরে মূল্যবান পেশাদার সহযোগিতা করেছে। বিশেষ করে স্পেস-ফ্লাইট সহযোগিতার বিষয়ে নবায়ন চুক্তির আলোকে তারা কাজ করেছে।

তিনি আন্তর্জাতিক গণমাধ্যমকে বলেন, জনসাধারণের প্রতিক্রিয়া দেখে আমি বুঝতে পারছি যে বিষয়টিতে তারা কতটা অবাক হয়েছে।

এদিকে আইএসএস-এর নাসার পরিচালক রবিন গ্যাটেনস বলেছিলেন, সরে যাওয়ার বিষয়ে রাশিয়ার কাছ থেকে কোনো আনুষ্ঠানিক ঘোষণা পায়নি মার্কিন মহাকাশ সংস্থা নাসা। তিনি আরও বলেন, বাণিজ্যিক স্পেস স্টেশনগুলোর সঙ্গে কাজ করার জন্য ২০৩০ সালের পর নাসা নিজেই আইএসএস থেকে বেরিয়ে আসার পরিকল্পনা করেছিল।

রবিন গ্যাটেনস

রবিন গ্যাটেনস

এ ঘটনায় মার্কিন-রাশিয়া মহাকাশ সম্পর্কের ভবিষ্যত কী শেষ হতে পারে, এমন প্রশ্নের জাবাবে তিনি বলেন, ‘না, একেবারেই না’। তিনি জোর দিয়ে আরও বলেন, রাশিয়াও আমাদের কাছে খুবই গুরুত্বপূর্ণ। তাদের সঙ্গেও মহাকাশ স্টেশন পরিচালনায় আমরা সব সময় কাজ করতে চাই।

এর আগে রাশিয়ার মহাকাশ সংস্থা- রসকসমস প্রধান ইউরি বরিসভ একটি সভায় প্রেসিডেন্ট ভ্লামিদির পুতিনকে বলেছেন, আমি মনে করি এই সময়ের মধ্যে (২০২৪) রাশিয়ান অবরিটাল স্টেশন গড়ে তুলতে পারবে।

রাশিয়া এবং যুক্তরাষ্ট্রের মহাকাশ সংস্থা অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে মিলে ১৯৯৮ সাল থেকে আন্তর্জাতিক মহাকাশ স্টেশনে কাজ করে আসছে। এটি রাশিয়া, যুক্তরাষ্ট্র, জাপান, কানাডা ও ইউরোপিয় মহাকাশ সংস্থাগুলোর একটি যৌথ প্রকল্প, যা ২০২৪ সাল পর্যন্ত পৃথিবীর চারপাশের কক্ষপথে পরিচালনার জন্য চুক্তি হয়েছিল। তবে যুক্তরাষ্ট্র সম্প্রতি এই চুক্তির মেয়াদ আরো ছয় বছর বাড়ানোর প্রস্তাব তুলেছিল। কিন্তু রাশিয়া এতে সায় দেয়নি।

Related News