Home News কলকাতায় মহাকাশ জাদুঘর

কলকাতায় মহাকাশ জাদুঘর

মহাকাশ জগতের প্রতি টান রয়েছে যাঁদের, তাঁরা একবার ঢুঁ মেরে আসতে পারেন ইএম বাইপাসের ধারে এই জাদুঘর থেকে।

by Newsroom
কলকাতার মহাকাশ জাদুঘরে অ্যাপোলো ১১ লুনার মডিউল

দেবদীপ চক্রবর্তী ।। 

কলকাতায় চালু হয়েছে স্পেস মিউজিয়াম। গত ২৭ অক্টোবর এই স্পেস মিউজিয়ামের উদ্বোধন করেন দেশের প্রথম মহাকাশচারী রাকেশ শর্মা। তবে, রবিবার থেকে সর্ব সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হল এই মিউজিয়াম। কলকাতার অন্যতম দ্রষ্টব্য স্থানগুলির মধ্যে জায়গা করে নিতে চলেছে এই মিউজিয়াম। মহাকাশ গবেষণা সম্পর্কিত বিভিন্ন জিনিস রাখা থাকছে এই সংগ্রহশালায়।

তিলোত্তমার দর্শনীয় স্থানের তালিকায় যুক্ত হল নতুন নাম। ছুটির দিনে ভিক্টোরিয়া, বিড়লা তারামণ্ডল, সায়েন্স সিটি ঘুরে দেখার প্ল্যান রয়েছে? তাহলে এবার রইল নতুন ঠিকানা। কলকাতায় মহাকাশ জাদুঘর বা Space Museum চালু হয়েছে রবিবার থেকে। মহাকাশ জগতের প্রতি টান রয়েছে যাঁদের, তাঁরা একবার ঢুঁ মেরে আসতে পারেন ইএম বাইপাসের ধারে এই জাদুঘর থেকে।

চালু হল জাদুঘর

ইন্ডিয়ান সেন্টার ফর স্পেস ফিজিক্সের (আইসিএসপি) মিউজিয়াম অব অ্যাস্ট্রোনমি উদ্যোগে রবিবার থেকে সর্ব সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হল এই মিউজিয়াম। মহাকাশ বিজ্ঞানের একাধিক মূল্যবান জিনিস দিয়ে সাজিয়ে তোলা হয়েছে এই মিউজিয়াম। পড়ুয়াদের তো বটেই, সাধারণ মানুষকে অনেক কিছু শেখাতে সাহায্য করবে এই মিউজিয়াম।

খুলল জনসাধারণের জন্য দরজা

গত ২৭ অক্টোবর এই মিউজিয়ামের উদ্বোধন করেছিলেন দেশের প্রথম মহাকাশচারী রাকেশ শর্মা। যদিও, কিছু কাজ বাকি থাকার জন্য সেদিনই এই সংগ্রহশালা সর্ব সাধারণের জন্য খুলে দেওয়া হয়নি। রবিবার থেকে সেটি চালু করে দেওয়া হল। দেশের প্রথম এবং একমাত্র মহাকাশ বিজ্ঞান জাদুঘর তৈরি হল আমাদের প্রিয় শহরে।

কী দেখা যাবে?

মহাকাশ জগতের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত একাধিক দ্রষ্টব্য জিনিস রয়েছে এই মিউজিয়ামে। সব মিলিয়ে মোট ১২০০ মতো জিনিস সাজানো দর্শকদের জন্য। রয়েছে মহাকাশ যানের রেপ্লিকা। বিভিন্ন মহাকাশচারীদের অটোগ্রাফ, প্রথম কোনও মহাকাশচারী চাঁদে পৌঁছে কী দেখেছিল?‌ কেমন করে হেঁটে ছিল?‌ এবং সেখান থেকে সংগ্রহ করা নানা জিনিস রাখা হয়েছে এই সংগ্রহ শালায়। এছাড়াও বিশেষ আকর্ষণ রয়েছে মঙ্গলের এবং চাঁদ থেকে সংগ্রহ করা মাটি।

টিকিটের কী ব্যবস্থা?

আইসিএসপির তরফে, মিউজিয়ামের টিকিট মূল্য ১০০ টাকা। সর্ব সাধারণের দেখার সুবিধা করে দেওয়ার জন্যে এই টিকিট মূল্য রাখা হয়েছে বলে দাবি। তবে একসঙ্গে ২৫টির বেশি টিকিট কাটলে বিশেষ ছাড় পাওয়া যাবে। সেক্ষেত্রে স্কুলের পড়ুয়াদের জন্য বাড়তি সুযোগ থাকছে সেই স্পেস মিউজিয়াম ভ্রমণের ক্ষেত্রে। অনলাইন এবং অফলাইন দুটি ভাবেই টিকিট কাটার ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। আপাতত শনিবার এবং রবিবার এই দুটি দিন সকাল নয়টা থেকে সন্ধ্যায় ছয়টা পর্যন্ত মিউজিয়াম খোলা থাকবে। এছাড়াও বছরের অন্যান্য ছুটির দিনগুলিতেও এই মিউজিয়াম খোলা রাখার ব্যবস্থা করা হচ্ছে। দর্শকদের আনাগোনা বাড়লে মিউজিয়াম খোলার দিন বাড়ানো হতে পারে বলে জানানো হয়েছে।

সৌজন্যে : এই সময়

Related News