Home News চন্দ্রযান-৩ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী ইসরো

চন্দ্রযান-৩ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী ইসরো

চার বছরে ব্যর্থ তিনটি অভিযান, তাই বাড়তি সতর্কতা

by Newsroom
চন্দ্রযান-৩

স্পেসটেটর ডেস্ক ।। কাছাকাছি পৌঁছেও স্বপ্নকে ছুঁয়ে দেখার আগে থমকে দাঁড়ানো। ভুলচুক কিছু রয়ে গিয়েছে কিনা, আর এক বার চোখ বুলিয়ে নেওয়া। সময় যত এগোচ্ছে, চন্দ্রযান-৩ মহাকাশযানকে ঘিরে উদ্দীপনা, উত্তেজনার পারদ যেমন চড়ছে, ভয়ও উঁকি দিচ্ছে মনে। কিন্তু চাঁদের বুকে পালকের মতো চন্দ্রযান-৩ মহাকাশযানকে অবতরণ করানোর বিষয়ে আত্মবিশ্বাসী ভারতীয় মহাকাশ গবেষণা সংস্থা ইসরোর ভাষ্য, কোথাও কোনও উদ্বেগের অবকাশ নেই।

বুধবার সন্ধ্যায় চাঁদের বুকে চন্দ্রযান-৩ মহাকাশযানকে নামানোর প্রক্রিয়া শুরু হবে। ISRO জানিয়েছে, ২৩ অগাস্ট বিকেল ৫টা বেজে ৪৫ মিনিটে চন্দ্রযান-৩ মহাকাশযানকে চন্দ্রপৃষ্ঠে নামার প্রক্রিয়া শুরু হবে। সন্ধে ৬টা বেজে ৪ মিনিটে পালকের মতো চাঁদের মাটিতে অবতরণ করবে চন্দ্রযান-৩ মহাকাশযানের ল্যান্ডার ‘বিক্রম’। আপাতত স্বাস্থ্য়পরীক্ষা চলছে মহাকাশযানের, যাতে অন্তিম মুহূর্তে কোনও বিপত্তি না বাধে।

তার আগে, সোমবার সংবাদমাধ্যমের মুখোমুখি হন ISRO-র চেয়ারম্যান এস সোমনাথ। তিনি বলেন, “এখনও পর্যন্ত সব ঠিক ভাবে এগোচ্ছে। অনভিপ্রেত কিছু ঘটেনি এখনও পর্যন্ত। তাই আমরাও আত্মবিশ্বাসী। সব প্রস্তুতি সেরে রাখা হয়েছে। ঠিক যেমন যেমন প্রযোজন ছিল, এখনও পর্যন্ত সব প্রযুক্তি সেভাবেই কাজ করছে।”

তিনি বলেন, “এখনও পর্যন্ত সব ঠিক ভাবে এগোচ্ছে। অনভিপ্রেত কিছু ঘটেনি এখনও পর্যন্ত। তাই আমরাও আত্মবিশ্বাসী। সব প্রস্তুতি সেরে রাখা হয়েছে। ঠিক যেমন যেমন প্রযোজন ছিল, এখনও পর্যন্ত সব প্রযুক্তি সেভাবেই কাজ করছে।” সোমবার কেন্দ্রীয় বিজ্ঞান এবং প্রযুক্তি মন্ত্রকের স্বাধীন দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী জিতেন্দ্র সিংহের সঙ্গেও দেখা করেন সোমনাথ। কোথাও কোনও সমস্যা নেই বলে মন্ত্রীকে জানান তিনি।

এর আগে, চন্দ্রযান-২ মহাকাশযান লক্ষ্যের কাছাকাছি পৌঁছেও, শেষ মুহূর্তে চাঁদের বুকে ভেঙে পড়ে। এবার তাই বাড়তি তৎপরতা গ্রহণ করেছে ISRO. এমন ভাবে তৈরি করা হয়েছে ল্যান্ডার ‘বিক্রম’কে, যে সেন্সর কাজ না করলে, ইঞ্জিন বিকল হয়ে গেলেও, সেটি ভেঙে পড়বে না। পরিকল্পনা মতোই, পালকের মতো চাঁদের মাটি ছোঁবে চন্দ্রযান-৩ মহাকাশযান।

সম্প্রতি চাঁদের বুকে নামার ঠিক আগের মুহূর্তে ভেঙে পড়েছে রাশিয়ার মহাকাশযান লুনা-২৫ প্রথমে সংযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়, তার পর সজোরে আছড়ে পড়ে চন্দ্রপৃষ্ঠে।তার জেরে চন্দ্রযান-৩ মহাকাশযানকে ঘিরেও সিঁদুরে মেঘ দেখছেন অনেকে। কারণ ২০১৯ থেকে ২০২৩ সালে এখনও পর্যন্ত চারটির মধ্যে তিনটি চন্দ্রাভিযানই ব্যর্থ হয়েছে। একমাত্র চিনের চাঙ্গে-৫ ছাড়া ইজরায়েলের বেরেশিত, জাপানের হাকুতো-আর এবং ভারতের চন্দ্রযান-২ অভিযান ব্যর্থ হয়েছে। তবে চন্দ্রযান-৩ নিয়ে আত্মবিশ্বাসী ইসরো।

Related News